নারী-পুরুষ বিবাহ যোগ্য হওয়ার জন্য শুধুমাত্র যে একটি শর্ত ইসলাম আরোপ করেছে

শায়খ আতিয়া সকর (আল-আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাতোয়া বিভাগের প্রধান) বলেন, ইসলাম কম বয়সে বিবাহের প্রতি উদ্বুদ্ধ করেছে। সাধারণ ভরণপোষণ এবং শারীরিক সক্ষমতা থাকলেই মানুষকে বিবাহ সম্পাদনের জন্য উৎসাহ দিয়েছে। যেমন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, তোমাদের মধ্যে যার  باءت (বাআত) আছে, সে যেন বিবাহ করে ফেলে।  باءت দ্বারা উদ্দেশ্য হলো, সাধারণ ভরণপোষণের ক্ষমতা এবং যৌন মিলনের সক্ষমতা।

এই হাদিসে সুস্পষ্টভাবে বলে দেওয়া হয়েছে, বিবাহের ক্ষেত্রে যুবকদের থেকে একমাত্র কাম্য হলো, সাধারণ খাবারদাবার, পোশাকের ব্যবস্থাপনাসহ পরিবার পরিচালনা। এর বাইরে যত শর্তারোপ করা হবে, সেগুলো বাড়াবাড়ি এবং বিবাহের পথে বাধা সৃষ্টি বলেই বিবেচিত হবে। এটাই আল্লাহর শরীয়ত। ইসলাম বিবাহের জন্য দ্বীনদারি, চরিত্র ছাড়া অন্য কোনো শর্ত আরোপ করেনি।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যখন তোমাদের কাছে এমন কেউ প্রস্তাব নিয়ে আসে, যার দ্বীনদারি চরিত্রের ব্যাপারে তোমরা সন্তুষ্ট, তবে তার সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক গড়ে দাও।

এই হাদিস প্রমাণ বহন করে, বিবাহের কর্ম সম্পাদনের জন্য মৌলিক শর্ত হলো দ্বীনদারী এবং চরিত্র। বাহারি উপঢৌকন, মোটা অংকের মহরসহ আরো যত বিষয় বর্তমানে দেখা যাচ্ছে, এসব বিবাহের পথে বাধা সৃষ্টির কারণ।

শায়খ আতিয়া সকর আরো বলেন, এই কথা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না যে, বিবাহের আকদের ক্ষেত্রে মহর একটি শর্ত। কিন্তু সমস্যা হলো, মহরের পরিমাণ নিয়ে কনেপক্ষ বর্তমানে এত মোটা অংকের মহর ধার্য করতে চায়, যা যুবকদের পক্ষে পরিশোধ করা সম্ভব না। অথচ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পবিত্র কোরআনের একটি সূরাকেও মহর হিসেবে গণ্য করেছেন, যখন পাত্রের কাছে মহর প্রদানের মতো কোনো অর্থ ছিল না। যা থেকে বোঝা যায়, মহরের ব্যাপারটি ইসলামে একটি প্রতীকী গুরুত্ব রাখে। মহরের উদ্দেশ্য হলো, যুবক তার নববধুকে উপহার প্রদান করা। নতুবা একজন নারীর মূল্য কখনো টাকা হতে পারে না। উপহার হলো ভালবাসার নিদর্শন। এটা গর্ব, বাড়াবাড়ি করার বিষয় নয়। আর আজ এটাই হচ্ছে। উল্লিখিত কারণসমূহের ফলেই বিবাহে বিলম্বনা এবং আইবুড়োত্বের মতো সমস্যাগুলো তৈরি হচ্ছে। যেগুলো সমাজে নানামুখী সংকট ছড়িয়ে দিয়েছে। একমাত্র ইসলামী নির্দেশনা মেনেই এগুলো থেকে দূরে থাকা সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *